top of page
Search

একটি কবিতায় অঙ্কিতা ঘোষ


চিনছি,পৃথিবীকে


অঙ্কিতা ঘোষ


মস্ত পৃথিবীটাকে ক্রমশ চিনে ফেলছি।

দেখতে দেখতে চিনছি

শুনতে শুনতে চিনছি

বলতে বলতে চিনছি

ভাবতে ভাবতে চিনছি

হাঁটতে হাঁটতে চিনছি

ঘরের আগল ভেঙে চিনছি

সকালের স্নিগ্ধতায় চিনছি

দুপুরের তীব্রতায় চিনছি

বিকেলের গন্ধে চিনছি



সন্ধ্যের আলোয় চিনছি

রাতের রাস্তায় চিনছি...

পৃথিবীকে চিনতে চিনতে ছোটোবেলার কোনো এক

শরতের পদ্মফুলের পাতা শুকিয়ে গেছে

আস্তরণ জমেছে শিশিরের ওপর, বৃষ্টির ওপর।

খেলার মাঠ বা নীল আকাশ ফুরিয়ে যেতে যেতে

পৃথিবী চেনাচ্ছে ইঁট কাঠে!

কবিতায় চিনছি, গানে চিনছি

বন্ধুত্বে চিনছি, শত্রুতায় চিনছি

ভালোবাসায় চিনছি, ঘৃণায় চিনছি

প্রেমে চিনছি, বিচ্ছেদে চিনছি।

অকাতরে কাকভেজা হয়ে ফিরছি রোদে,

ডায়েরিতে আটকে রাখছি চেনা পৃথিবীর অবয়ব

চেনা নির্যাতন আর বৃদ্ধাশ্রমের মুখ বন্ধ হয় কলমের আঁচড়ে।

পৃথিবীকে চিনছি রোজ চেতনে অবচেতনে।



দিন ফুরিয়ে এলে তোমাকে এই চেনা পৃথিবীর

সবটুকু দিয়ে যাবো সঞ্চয়ের ঝুলি থেকে।

নিজের ভার বইতে বইতে আকাশকে রক্তে মিশিয়ে নিয়ে

চেনা পৃথিবীর তার চির পরিচিত আমিত্বে ফেরার কালেও

ভালোবেসে চিনছি ভালোবাসায় চিনছি

ফিরিয়ে দেওয়ায় চিনছি ফিরিয়ে নেওয়ায় চিনছি

পৃথিবীতে ফিরতে ফিরতে পৃথিবীকে চিনছি!



56 views0 comments

Comments


bottom of page